MysongBD.Com
home
ArtistA-Z Mp3A-Z VideoTips & Forum
imageLike Us On Facebook
Search Files
Post reply

যেভাবে আয়েশাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলেছিলেন তামিম!
MYSONGBD.NET
77 days ago
reply-1
ইদানীং টেলিভিশন খুললেই একটা
বিজ্ঞাপন খুব চোখে পড়ছে-তামিমের পটানোবিষয়ক
বিজ্ঞাপন। তামিম কখনো বোলার, কখনো আম্পায়ার,
কখনো রোদ্দুর, কখনো আরও কাকে কাকে যেন
পটাচ্ছেন!
তা হয়তো আম্পায়ার, বোলার বা সমর্থকদের পটাতেও
পারেন তামিম ইকবাল খান। কিন্তু পটানো বলতে প্রথমেই
যেটা মাথায় আসে, সেই বান্ধবী পটানোর ব্যাপারে তামিম
একেবারে শুরু থেকেই বড় আনাড়ি। আসলে আনাড়ি না
বলে, বলা ভালো সে চেষ্টাও খুব একটা করেননি
চট্টগ্রামের খানবাড়ির এই যুবরাজ


[img]http://www.bd24live.com/bn/article_images/2016/11/06/1.jpg[/img]




কেন করেননি?
কারণ, সেটা দরকারই হয়নি। কারণ, অন্যদের পটাবেন কখন?
পুরো কৈশোর তো গেছে একজনকে পটাতে
পটাতে। তিনি আয়েশা সিদ্দিকা। হ্যাঁ, সারা জীবন এই
একজনকেই পটাতে পটাতে কেটে গেল তামিমের।
তামিম ছিলেন তখন সানশাইন গ্রামার স্কুল অ্যান্ড কলেজের
‘এ’ লেভেলের ছাত্র। আয়েশা ওই একই প্রতিষ্ঠানের
ছাত্রী। হঠাৎ একদিন কী করে যেন তামিমের চোখে
পড়ে গেলেন আয়েশা। তারপর সিনেমায় যা হয় আর কী!

তামিমের জীবনের তখন ধ্যানজ্ঞানই হয়ে দাঁড়াল এই
আয়েশাকে পটানো। কিন্তু জীবন তো আর সিনেমা
নয়। চাইলেই পটিয়ে ফেলা যায় না। প্রথম প্রথম ইশারা-
ইঙ্গিতে চেষ্টা করলেন, কাজ হয় না। এরপর আয়েশার এক
বান্ধবীকে দিয়ে প্রস্তাব পাঠানো, এটা চিরায়ত উপায়। কিন্তু
এতেও কাজ হলো না।
অবশেষে তামিম ঠিক করলেন, আর ডিফেন্স করে লাভ
নেই। হোক পেস বোলিং, এবার সামনে বেড়ে তুলে
মারতে হবে। এগিয়ে গেলেন। সোজা হেঁটে গিয়ে
বললেন, ‘আই লাভ ইউ’।
টি-টোয়েন্টির যুগ। এতে নাকি কাজ হয়ে যায়। কিসের
কী! কাজের ‘ক’-ও হলো না। একেবারে শোনামাত্র
প্রস্তাব খারিজ করে দিলেন আয়েশা। ঠিক কী বলে
খারিজ করেছিলেন, তা নিয়ে আন্তর্জাতিক বিতর্ক আছে।
তবে কেউ কেউ বলে, আয়েশা নাকি বলেছিলেন, ‘আই
হেইট দিস ওয়ার্ড-লাভ’!
তাহলে কীভাবে হবে!
তামিম মারকাটারি ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি মাঝে মাঝে স্পিন করেন?
স্পিনারদের মাথায় বলের মতোই বাঁক নেওয়া কিছু বুদ্ধি
থাকে। এবার তামিম পার্টটাইম স্পিনার বুদ্ধিটা কাজে লাগালেন।
বিনয়ের সঙ্গে প্রস্তাব দিলেন, আচ্ছা প্রেম করে কাজ
নেই! ওটা ভালো কথা না। ওর চেয়ে আমরা বন্ধু
হিসেবেই থাকি।
হ্যাঁ, এটা ভালো প্রস্তাব। এমন নিরীহ প্রস্তাবে আর ‘না’
করলেন না আয়েশা। আর যায় কোথায়! যে লোক
অ্যান্ডারসন, ব্রেসনান, টিনো বেস্টদের ঘুম হারাম করে
দিতে পারেন, তার সঙ্গে থেকে থেকে
ভালোবাসবেন না, যাবেন কোথায়। আয়েশা টেরও
পেলেন না, কবে তামিমের পার্টটাইম স্পিনে কাবু হয়ে
গেছেন তিনি।
আয়েশা কাবু হলেন, তামিম আগে থেকেই পড়ে
ছিলেন, অতএব শুরু হয়ে গেল ভালোবাসা, প্রেম এবং
ভালোবাসা।
প্রেম হয়ে গেলেও ‘পিকচার আভি বি বাকি হ্যা ’-
চট্টগ্রামের দুই সম্ভ্রান্ত রক্ষণশীল পরিবারের
ছেয়েমেয়ে রাস্তায় ড্যাং ড্যাং করে হাত ধরে প্রেম
করে বেড়াবে, সে কল্পনারও সুযোগ নেই। একবার
প্রেম শুরু হয়ে গেলে শুরু হলো আসল যন্ত্রণা।
স্কুলের দারোয়ান, বাসার পাহারাদার, অভিভাবকদের লাল লাল
চোখ ফাঁকি দিয়ে দেখাই করা দায়। প্রেম হবে কী
করে? ভাগ্যিস তত দিনে মোবাইল এসে গেছে
দেশে। নইলে আরেকটা লাইলি-মজনু লিখতে হতো কি
না, কে জানে।
মোবাইলে আবার বেশি কথা বলার উপায় নেই। তাহলে ধরা
পড়ে যাবে। তাই ছোট ছোট টেক্সট মেসেজ
পাঠিয়ে চলে প্রেম। আর ফাঁকে ফুসরতে একবার
চোখের দেখা মিললেই যেন আকাশ হাতে মেলে।
এর মধ্যে আয়েশা একবার বাসায় টেক্সট পাঠালে ধরা
পড়ে কেলেঙ্কারিও নাকি হতে বসেছিল।
সমস্যাটা দিনকে দিন আয়েশার তরফেই বাড়তে থাকল। তামিম
ওপেনার মানুষ তো মাকে বলে আগেই প্রেমের
জানাজানির সূচনাটা করে রেখেছিলেন। তামিমের মাও খুব
সেকেলে মানুষ নন। তাই মেনেই নিয়েছিলেন ব্যাপারটা।
কিন্তু আয়েশার হলো ঝামেলা, বাড়ি বলতেও পারেন না,
সইতেও পারেন না। আত্মীয়-স্বজনরা যা গিফট দেয়
লুকিয়ে তামিমকে পাঠিয়ে দেন, আর গুমরে ফেরেন।
এর মধ্যে আয়েশাকে মুক্তি দিল মালয়েশিয়া।
কুয়ালালামপুরের একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে চলে
গেলেন আয়েশা। ব্যস! তামিমের পৃথিবীতে প্রিয় শহর
হয়ে গেল কুয়ালালামপুর, প্রিয় পরদেশ মালয়েশিয়া, প্রিয়
বিমান মালয়েশিয়ান এয়ারলাইনস!
তত দিনে তামিম জাতীয় দলের তারকা। সিরিজের মাঝে
মাঝেই ছুটি পান। ছুটি পেয়েই সো করে চলে যান
মালয়েশিয়া। আমরা যারা ক্রীড়া সাংবাদিকতা করি, তত দিনে
জেনে ফেলেছি। কিন্তু পত্রিকায় লেখার উপায় নেই।
কারণ, তামিমের এই মালয়েশিয়া অভিসারের তাহলে কপালে
দুঃখ আছে।
দেশে যতই বাধা থাক, মালয়েশিয়াই আসলে প্রথম সিনেমার
মতো প্রেম জমল। রেস্টুরেন্ট, সিনেমা, বেড়ানো
এসব না হলে আর কিসের প্রেম। আর এই সবই হলো
মালয়েশিয়ায়।
কিন্তু এভাবে আর কত দিন? নাহ। আর বেশি চেপে
রাখলেন না তামিমের মা। বুঝলেন ছেলে বড় হয়েছে,
মেয়েও যোগ্য তাহলে আর কিসের বাধা। তিনি মাথা
নাড়াতেই কর্মযজ্ঞে ঝাঁপিয়ে পড়লেন আকরাম খান,
নাফীস ইকবাল। শুরু হয়ে গেল বিয়ের মহাযজ্ঞ।
তারপর? তারপরের গল্প তামিম আর আয়েশার কাছ থেকেই
শুনে নেবেন না হয়। শুধু তামিম মাঝে একদিন গোপনে
বলার মতো করে বলছিলেন, ‘সে জীবনে আর এই
জীবনে একটা বড় পার্থক্য আছে, শুনবেন? এখন আর
ওর সঙ্গে লুকিয়ে দেখা করতে হয় না।’
আহ্! এই না হলে পটানোর সুফল!

+ 170 Likes | Mail | Wall
........

Post your Commets
Name:

Text:

Color

Site: Prev.Next.Last..1
...::: Last 10 MP3 Updates :::...
Sms Collection | Admin Info | Download Menu
Recent Search :
hua hain aaj pehli baar mp3 song download hua he aaj bangla new natok 2017 natok 2017 banga song 2017 jbsb2017 mp3 for free রাখি বন্ধন জলসা রাখি বন্ধন নাটক Bangla Movies Bangla Movie Mp3 Bangla Cartoon Bangla Album Mp3 Nissho Prothom Dekha
More Search Collection
Home
Contact Us
Back
MysongBD.Com | Download New HD Video Songs, Bangla Music Video Song, Bangla Movie, Bangla Natok, Bangla Deshi Natok, Bangla Drama, Kolkata Bangla Movie Video Songs, Bangla Music Video Songs, Bangla Romantic Video Songs, Bangla Funny Songs, Bangla Mp3 Songs, Bangla Movie Mp3 Album, Bangla New Mp3 Album HD Songs Download, HD Music Download
Download Bollywood full movie for free
Download Android Game for Free